৩ শতাধিক ট্রেনযাত্রীর প্রাণ বাঁচালেন শাহান মিয়া

মধ্যরাতে ন্যাশনাল ইমা'রজেন্সি সার্ভিস ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে চমকে ওঠে পুলিশ। মোবাইলের অপরপ্রান্ত থেকে এক যুবক পুলিশকে জা'নান ভ'য়াবহ

ট্রেন দুর্ঘ'টনার খবর। স'ঙ্গে স'ঙ্গে ঘ'টনাস্থলের উদ্দেশ্য রওনা হয় পুলিশ। পৌঁছে দেখে ঘ'টনা সত্য। হয়তো। ওই যুবক সময়মতো ফোন না দিলে আরও অনেক প্রা'ণহানির ঘ'টনা ঘটে যেত।

রোববার (২৩ জুন) রাত পৌনে ১২টার দিকে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় বরমচাল সেতু ভে'ঙে ভ'য়াবহ ট্রেন দুর্ঘ'টনার পরপরই ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেন শাহান মিয়া। পুলিশকে ট্রেন দুর্ঘ'টনার খবর জা'নান। খবর পেয়ে ঘ'টনাস্থলে পৌঁছে উ'দ্ধার অ'ভিযানে নামে পুলিশ। শাহান মিয়ার বাড়ি কুলাউড়ার আকিলপুর গ্রামে। তিনি কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী।

ট্রেন দুর্ঘ'টনার বর্ণনা দিয়ে শাহান মিয়া বলেন, আমি বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলাম। বরমচাল সেতুর অনেকটা দূরে আমি তখন। হ'ঠাৎ বিকট শব্দ

কানে আসে। সেই স'ঙ্গে ভেসে আসে মানুষের কান্না, চিৎকার। দূর থেকে তাকিয়ে দেখে, বরমচাল সেতু ভে'ঙে ট্রেনের বগি নিচে। কাছে যেতেই মানুষের

কান্নার আওয়াজ আরও জো'রে শোনা যায়। ঘ'টনার ২-৩ মিনিটের মধ্যেই আমি ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেই। স'ঙ্গে স'ঙ্গে রিসিভ হয় ফোন। তখন পুলিশকে পুরো ঘ'টনা খু'লে বলি। যদি সময়মতো পুলিশ না আসতো আরও অনেক মানুষের প্রা'ণহানি ঘটতো।

তিনি আরও বলেন, বরমচাল স্টেশন সংলগ্ন সেতুতে হ'ঠাৎ ট্রেনের ছয়টি বগি লাইনচ্যুত হয়ে খালে প'ড়ে যায় এবং একটি বগি উল্টে যায়। এতে ঘ'টনাস্থলেই কয়েকজনের মৃ'ত্যু হয়। এছাড়া লাইনচ্যুত বগির যাত্রী ছাড়াও মা'রাত্মক ঝাকুনিতে অ'ন্তত দুই শতাধিক যাত্রী আ'হত হয়। ঘ'টনাস্থলে এসে আ'হতদের উ'দ্ধার করেছে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস।

বিষয়টি নি'শ্চিত করে কুলাউড়া থা'নার ভারপ্রাপ্ত ক'র্মকর্তা (ওসি) উয়ারদৌস হাসান বলেন, রাত ১২টার কিছুক্ষণ আগে এক ব্যক্তি ৯৯৯ নম্বরে ফোন

দিয়ে ট্রেন দুর্ঘ'টনার খবর জানায়। এত রাতে বড় ধ'রনের ট্রেন দুর্ঘ'টনার খবর শুনে অবাক হই আম'রা। সেই স'ঙ্গে তখনই ঘ'টনাস্থলের উদ্দেশ্য রওনা

দেই। সেখানে গিয়ে ৬ জনের ম'রদে'হ এবং অ'ন্তত দুই শতাধিক মানুষকে আ'হত অব'স্থায় উ'দ্ধার করা হয়েছে। দুর্ঘ'টনার পরপরই ওই যুবক ৯৯৯ নম্বরে ফোন না দিলে বড় ধ'রনের ঘ'টনা ঘটতো।

ওসি আরও বলেন, ইতোমধ্যে উ'দ্ধারকাজ শেষ হয়েছে। আ'হতদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকি'ৎসাধীন রয়েছে। হতাহতদের উ'দ্ধারে কাজ করেছে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও বিজিবি। ট্রেনের অন্য যাত্রীদেরও নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

রোববার রাত ১২টার দিকে কুলাউড়ার বরমচাল স্টেশনের পাশে ঢাকাগামী উপবনের বগি ছিটকে প'ড়ে। তিন শতাধিক যাত্রী নিয়ে রাতে সিলেট

স্টেশন থেকে যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্য ওই ট্রেনটি ছে'ড়ে যায়। এ ঘ'টনায় তিনজন নারী ও তিনজন পুরুষসহ মোট ৬ জন নি'হত হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সিলেটের সহকারী পরিচালক মুজিবুর রহমান বলেন, হতাহতদের উ'দ্ধার সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ, দক্ষিণ সুরমা ও সিলেট

সদর দফতর থেকে দমকল বা'হিনীর একাধিক ইউনিট উ'দ্ধার তৎপরতায় যোগ দেয়। রাত ৪টার দিকে উ'দ্ধার কাজ শেষ হয়েছে।