মিন্নির জামিন না পেয়ে তাৎক্ষণিক যা বললেন তার আইনজীবী

বরগুনা: বরগুনায় রিফাত শরীফ হ'ত্যা মা'মলার প্রধান সাক্ষী ও নি'হত রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির জা'মিন চেয়ে ফের আদালতে আবেদন করা হয়েছে। আদালত আগামী ৩০ জুলাই জা'মিন শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দুপুরে বরগুনার জে'লা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আসাদুজ্জামান শুনানির দিন ধার্য করেন।

বিষয়টি নিয়ে মিন্নির আ'ইনজীবী অ্যাডভোকেট মাহবুবুল বারী আসলাম বলেন, সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মিন্নির জা'মিন নামঞ্জুর হওয়ায় জে'লা ও দায়রা জজ আদালতে মিস কেস হিসেবে মিন্নির জা'মিন শুনানির আবেদন করি। পরে আদালত শুনানি শেষে নিম্ন আদালতের নথি তলব করে আগামী ৩০ জুলাই মিন্নির জা'মিন শুনানির দিন নির্ধারণ করেছেন।

গত ১৬ জুলাই (মঙ্গলবার) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বরগুনার মাইঠা এলাকার বাবার বাসা থেকে বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরসহ মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদ ও তার বক্তব্য রেকর্ড ক'রতে বরগুনা পুলিশ লাইন্সে নিয়ে যায় পুলিশ। এরপর দীর্ঘ ১০ ঘণ্টার জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাত ৯টায় মিন্নিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এরপর বুধবার বিকেল ৩টার দিকে বরগুনার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মিন্নিকে হাজির করে সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে মিন্নির পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালতের বিচারক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী।

পরদিন বৃহস্পতিবার বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মা'রুফ হোসেন জা'নান, মঙ্গলবার দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ ও বুধবার রিমান্ড মঞ্জুরের পর পু'লিশের জিজ্ঞাসাবাদে মিন্নি তার স্বামী রিফাত শরীফ হ'ত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বী'কার করেছেন। এ হ'ত্যার পরিকল্পনার স'ঙ্গেও তিনি যুক্ত ছিলেন।

এরপর শুক্রবার বিকেলে মিন্নি একই আদালতে তার স্বামী রিফাত শরীফ হ'ত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বী'কার করে স্বী'কারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে আদালত তাকে জে'ল হাজতে পাঠানোর নির্দে'শ দেন।

এদিকে, রিফাত হ'ত্যা মা'মলার অভিযুক্ত হয়ে আদালতে স্বী'কারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়া কামরুল আহসান সাইমুনের জা'মিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন বরগুনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। সকালে আবেদনের পর দুপুরে সাইমুনের জা'মিন আবেদনের শুনানি হয়। পরে শুনানি শেষে আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক মো. ইয়াসিন আরাফাত সাইমুনের জা'মিন আবেদন নামঞ্জুর করেন।

বিষয়টি জা'নিয়েছেন সাইমুনের আ'ইনজীবী অ্যাডভোকেট গোলাম মোস্তফা কাদের।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে স্ত্রী মিন্নির সামনেই স'ন্ত্রাসীরা প্র'কাশ্যে রামদা দিয়ে কু'পিয়ে গু'রুতর আ'হত করে স্বামী রিফাত শরীফকে। গু'রুতর আ'হত রিফাতকে ওই দিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকেলে চিকি'ৎসাধীন অব'স্থায় তিনি মা'রা যান। এ ঘ'টনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ ও পাঁচ-ছয় জনকে অজ্ঞাত আসামি করে বরগুনা থা'নায় একটি হ'ত্যা মা'মলা দা'য়ের করেন।

এখন পর্যন্ত মিন্নিসহ ১৫ জন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদের সবাই রিফাত হ'ত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বী'কার করে আদালতে স্বী'কারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।