রাতে তিন তালাক, সকালে গৃহবধূর ঝু’লন্ত ম’রদেহ উ’দ্ধার

ভারতে আবরো শিরোনাম তিন তালাক। গত বুধবার দেশটির রায়গঞ্জের গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েতে এক বধূকে মা’রধ'র করে তিন তালাক দেন তার স্বামী। পরে আজ বৃহস্পতিবার সকালে নুরবানুর (২৫) ঝু’লন্ত ম’রদে'হ উ’দ্ধার করা হয়।

গত মঙ্গলবারই দেশের সংসদে পাশ হয়েছে তিন তালাক বিল। তার ঠিক একদিনের মধ্যেই এই ঘ'টনা ঘটল। ধারণা করা হচ্ছে, ওই গৃহবধূর স্বামী তিন তালাক বলাতেই অ’ভিমান করে আ’ত্মহ’ত্যা করেছেন। তবে খু’নের স’ন্দে'হও গাঢ় হচ্ছে। কারণ বুধবারই নাকি তিন তালাকের হু’মকি পেয়ে কাতর হয়ে ওই গৃহবধূ ফোন করেছিলেন তারা মাকে। তাকে মে’রে ফেলা হতে পারে এমনই আশ'ঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন।

ভারতীয় স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ বিষ্ণপুর গ্রামের বাসিন্দা মোহাম্মদ সুন্দরলাল। তাস (প্লেয়িং কার্ড) খেলা নিয়ে প্রায় দিনই স্ত্রীর স'ঙ্গে ঝ’গড়া লে'গে থাকতো। স্ত্রী তাস খেলার বা'ধা দেওয়ায় বুধবার রাতে স্ত্রীকে মা’রধ'র করে সুন্দরলাল। পাশাপাশি গ্রামবাসীদের সামনেই স্ত্রীকে তিন তালাক দেন। পরে বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির পাশের একটি গাছ থেকে তার স্ত্রী নুরবানুর ঝু’লন্ত ম’রদে'হ উ’দ্ধার করা হয়।

এদিকে প্রতিবেশীদের অ’ভিযোগ, মা’রধ'রের পর শ্বা’সরোধ করে নুরবানুকে খু’ন করে সুন্দরলাল ও তার বাবা-মা। এই ঘ'টনাকে কে'ন্দ্র করে এলাকায় ব্যা'পক চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। ঘ'টনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থা'নার পুলিশ। ঘ'টনার পর থেকেই প’লাতক ওই বধূর স্বামী শ্বশুর ও শাশুড়ি।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, নুরকে হ’ত্যা করা হয়েছে, নাকি সর্বসমক্ষে স্বামী তিন তালাক দেওয়ায় সে অ’ভিমানে আ’ত্মঘাতী হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আম'রা দু’রকম অ’ভিযোগই পেয়েছি।