নোবেল না বুঝে কথাগুলো বলেছেন: শ্রীকান্ত আচার্য

সারেগামাপার ক'ল্যাণেই দুই বাংলায় এখন জনপ্রিয় নাম বাংলাদেশের মাঈনুল আহসান নোবেল। যৌথভাবে তিনি তৃতীয় হয়েছেন এই প্রতিযোগিতায়। এ নিয়ে কলকাতা ও বাংলাদেশের নোবেল ভক্তদের যখন দুঃখের শেষ নেই, তখনই নতুন এক বিত'র্কে জড়ালেন এ শিল্পী।

‘জাতীয় সংগীত’কে অপমান করেছেন বলে অ'ভিযোগ উঠেছে তার বি'রুদ্ধে। অ'ভিযোগ উঠেছে, এক লাইভ সাক্ষাৎকারে জাতীয় সংগীত নিয়ে বাজে মন্তব্য করেছেন তিনি।

সেই সাক্ষাৎকারে নোবেল বলেছেন, ‘রবীন্দ্রনাথের লেখা জাতীয় সংগীত ‘আমা'র সোনার বাংলা’ যতটা না দেশকে প্র'কাশ করে তার চেয়ে কয়েক হাজার গুণ বেশি প্র'কাশ করেছে প্রিন্স মাহমুদের লেখা ‘বাংলাদেশ’ গানটি। যদিও নোবেল কথাটি বলার আগে বলে নিয়েছিলেন যে, এটি তার একান্ত ব্য'ক্তিগত মত।

নোবেলকে নিয়ে এই স'মালোচনায় ঢেউ গিয়ে আছড়ে প'ড়েছে পশ্চিমবঙ্গেও। ‘সারেগামাপা’র অন্যতম বিচারক শ্রীকান্ত আচার্যের কানে গিয়েও পোঁছেছে বিষয়টি। তিনিও নোবেলের এমন অর্বাচীন মন্তব্যে অবাক হয়েছেন।

এ বিষয়ে প্র'তিক্রিয়া জানতে চাইলে শ্রীকান্ত আচার্য বাংলাদেশি এক গণমাধ্যমকে বলেন, ভালো গায় ছেলেটা। ‘সা রে গা মা পা’তে ওকে খুব কাছ থেকে দেখেছি। ও হ'ঠাৎ করে এমন মন্তব্য কেনো করলো ঠিক বুঝে উঠতে পারছি না। রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে কথা বলার আগে ওর আরও সংবেদনশীল হওয়া উচিত ছিল। হুটহাট মুখে যা আসে তা বলে দিলে তা নোবেলের জন্যই ক্ষ'তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

শ্রীকান্ত আরও বলেন, জেমসের গাওয়া প্রিন্স মাহমুদের লেখা ‘বাংলাদেশ’ গানটি আমা'রও পছন্দের। কিন্তু তাই বলে রবীন্দ্রনাথের ‘আমা'র সোনার বাংলা’কে ছোট ক'রতে পারিনা। আমা'র মনে হয় নোবেল না বুঝে কথাগুলো বলেছেন। আমি তার মঙ্গল কামনা করি।