নোয়াখালীতে স্পিরিট পান করে ৫ জনের মৃ’ত্যু

নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জে স্পিরিট পান করে পাঁচজনের মৃ’ত্যু হয়েছে। এ ঘ'টনায় অ'ন্তত ছয়জনকে আ’শ'ঙ্কাজনক অব'স্থায় নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল ও ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বসুরহাট বাজারের পান বাজার সংলগ্ন রফিক হোমিও হলের স্পিরিট পান করে পাঁচজনের মৃ’ত্যু হয়।

নি’হতরা হলেন- উপজে'লার বসুরহাট পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের বাঁশ বেপারি বাড়ির নূর নবী মানিক (৫০), একই এলাকার ক্ষিরত মহাজন বাড়ির রবি লাল রায় (৫৫), মোহাম্মদনগর গ্রামের মহিন উদ্দিন (৪০), চর কাঁকড়া ইউয়িনের টেকের বাজার এলাকার আদুল খালেক (৫৮) ও সিরাজপুর ইউনিয়নের মতলব মিয়ার বাড়ি সংলগ্ন মো. সবুজ (৬০)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পুলিশ জানার আগেই নি’হত তিনজনের দা'ফন সম্পন্ন হয়েছে। তবে আরও ২ জনের দা'ফন এখনও সম্পন্ন হয়নি। পরে পুলিশ খবর পেয়ে রবি লাল রায়’র ম’রদে'হ উ’দ্ধার করে থা'নায় নিয়ে আসে এবং আরও একজনের ম’রদে'হ উ’দ্ধারের চেষ্টা করছে।

এ ঘ'টনায় পুলিশ স্পিরিট বিক্রেতার ছেলে প্রিয়মকে আ’টক করেছে। তবে স্পিরিট বিক্রেতা ডা. জায়েদ ঘ'টনা আঁচ ক'রতে পেরে আগেই গা ঢাকা দিয়েছেন।

স্থানীয়দের অ’ভিযোগ, এ দোকানের মালিক জায়েদ ও তার ছেলে প্রিয়ম অনেক বছর ধ'রে খোলামেলাভাবে এ হোমিও হল দোকানে স্পিরিটসহ বিভিন্ন নে’শা জাতীয় দ্র’ব্য বিক্রি করে আ'সছে। সে এই স্পিরিট বিক্রির টাকায় কোম্পানিগঞ্জ উপজে'লা ভূমি অফিসের পাশে ফাউন্ডেশন দিয়ে নি'র্মাণ করছে বহুতল ভবন।

এ বিষয়ে কোম্পানিগঞ্জ থা'নার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান পাঁচজনের মৃ’ত্যুর সত্যতা নি'শ্চিত করে বলেন, স্পিরিট পানে পাঁচজনের মৃ’ত্যুর খবর শুনে নি’হতদের বাড়ি পরিদর্শন করি। ঘ'টনাস্থল পরিদর্শনকালে একজনের ম’রদে'হ উ’দ্ধার করা হয়েছে। আরও একজনের ম’রদে'হ উ’দ্ধারের চেষ্টা করছে পুলিশ। এর আগে তিনজনের দা'ফন সম্পন্ন করা হয়েছে।