পুলিশ সুপার আমার বুকে কনুই দিয়ে আ’ঘাত করেন, এটা কোন ধরনের পুলিশ: আবরারের ছোটভাই

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েটের শিক্ষার্থী নি’হত আবরার ফাহাদের ছোটভাই ফায়াজকে মা’রধ'র করেছে পুলিশ। আজ ৯ অক্টোবর বুধবার বুয়েট ভিসি অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম আবরারদের বাড়ি কুষ্টিয়ায় গেলে এলাকাবাসীর স'ঙ্গে পু'লিশের সংঘ'র্ষ বাধে। এসময় আবরারের ছোট ভাইসহ আ’হত হন তিনজন।

এ সময় আবরারের ছোট ভাই ফায়াজ বলেন, কুষ্টিয়ার অ্যাডিশনাল এসপি তাকে কনুই দিয়ে আ’ঘাত করেছেন। এবং গতকাল তার ভাইয়ের জানাজার সময় বলেছিলেন দুই মিনিটে যেন জানাজা শেষ করা হয়।

এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রতিনিধি জা'নান, বুয়েট ভিসি শুধুমাত্র আবরারের ক'বর জিয়ারত ক'রতে পেরেছেন। তিনি আবরারের বাড়িতে ঢু'কতে পারেননি। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তাকে বা’ধা দেন। এসময় পু'লিশের স'ঙ্গে এলাকাবাসীর সং’ঘর্ষ হয়।

এ সময় আবরারের ছোট ভাই ফায়াজ, তার ফুপাতো ভাইয়ের স্ত্রী ও আরও একজন নারী আ’হত হন বলেও জানা যায়।

এ সময় ফায়াজ বলেন, ‘আমি আবরারের ছোট ভাই। আজ আমাদের এখানে ভিসি সাহেব এসেছিলেন। এখানে এসে তাঁর আমা'র মা’র সাথে দেখা করা উচিত ছিল। তিনি এখানে দেখা ক'রতে তো আসলেনই না বরং তিনি যখন ফি'রে যাচ্ছিলেন এবং আমি তাঁর সাথে কথা বলতে যাই। তখন এখানকার দায়িত্বে থাকা অ্যাডিশনাল এসপি (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) মোস্তাফিজুর রহমান আমা'র বুকে কনুই দিয়ে আঘা'ত করেন।’

ফায়াজ আরও বলেন, ‘কালকেও যখন আমা'র ভাইয়ের জানাজা হয় তখন তিনি বলেছিলেন দুই মিনিটের মধ্যে জানাজা শেষ ক'রতে হবে। কিভাবে তিনি এটা বলেন? আজ এখানে আমা'র ভাবি ছিল, তাঁকে বে’ধড়কভাবে পুলিশ দিয়ে মা’রা হয়েছে। তার কাপড়-চোপড় টেনে তাঁর শ্লী’লতাহানি পর্যন্ত করা হয়েছে। এটা বাংলাদেশের কোন ধ'রনের পুলিশ?’