সুতার বদলে চীন থেকে এলো বালু

পোশাক কারখানার জন্য সুতা আমদানির ঘো'ষণা দেওয়া একটি কনটেইনারে বালু পেয়েছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। বালুভর্তি কনটেইনারটি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে খালাসের সময় আ’টক করা হয়েছে। ঘো'ষণা বহির্ভূতভাবে বালু এনে বিদেশে টাকা পা’চার করা হয়েছে বলে ধারণা কাস্টমস ক'র্মকর্তাদের।

আজ বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম বন্দরের ‘ওভারফ্লোইয়ার্ড’ থেকে কনটেইনারটি আ’টক করা হয় বলে জানিয়েছেন কাস্টমসের উপ-কমিশনার নুর উদ্দিন মি'লন।

কাস্টমস ক'র্মকর্তারা জা'নান, গাজীপুরের মির্জাপুর এলাকার ‘এন জেড এক্সেসরিজ লিমিটেড’ নামে একটি টেক্সটাইল কারখানা এক্সিম ব্যাংকের গুলশান শাখায় চীন থেকে ৩২ হাজার ১০ ডলার সমমূল্যের পলিস্টার আমদানির জন্য ঋণপত্র খু'লেছিল। চীনের জিংতাই ইয়ামিঝি টেক্সটাইল কোম্পানি লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে পলিস্টার কেনার ঘো'ষণা দেওয়া হয়েছিল।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর ঘো'ষণা অনুযায়ী কনটেইনার নিয়ে এমভি থর্সউইন্ড নামের একটি জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দরে আসে। এন জেড এক্সেসরিজ চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদের কালকিনি কমা'র্শিয়াল এজেন্সিস লিমিটেড নামের একটি সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠানকে তাদের আমদানি করা সুতার কনটেইনার খালাসের দায়িত্ব দেয়। আজ দুপুরে কনটেইনারটি চট্টগ্রাম বন্দরের ইয়ার্ড থেকে বের করা হচ্ছিল।

চট্টগ্রাম কাস্টমসের উপ-কমিশনার নুর উদ্দিন মি'লন বলেন, ‘গো’পন সংবাদের ভিত্তিতে আম'রা বন্দরের ইয়ার্ডে গিয়ে কনটেইনারটি আ’টক করি। সেখানে তল্লা'শিতে সুতার পরিবর্তে আম'রা বালু পাই। আমদানির নামে বিপুল পরিমাণ টাকা বিদেশে পা’চার হয়েছে বলে আমাদের ধারণা। আম'রা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।’