ঘোষণা দিয়ে রাজনীতি থেকে অবসরে বিএনপি নেতা

ঘোষণা দিয়ে রাজনীতি থেকে অবসর নিয়েছেন বিএনপি নেতা মোস্তফা অলি আহমেদ রুমি চৌধূরী। তিনি বদলগাছী উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছিলেন। সোমবার বেলা ১১টার দিকে নওগাঁ জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষণা দেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে রুমি চৌধূরী জানান, নওগাঁ কে.ডি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণিতে পড়ার সময় জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন সংগঠিত এবং রেজিস্ট্রেশনের মধ্য দিয়ে রাজনীতি শুরু করেন। নিজ উপজেলায় অনেক শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃত্ব দিয়েছেন। দীর্ঘ প্রায় ৪০ বছরের রাজনৈতিক জীবনে সাধারণ মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘এখন বয়স ৬০ বছর পেরিয়েছে, রাজনীতিতে এসেছে পরিবর্তন। এ পরিবর্তন আমার মনন এবং নীতি আদর্শের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। যে আদর্শ নিয়ে রাজনীতিতে সাফল্য পেয়েছি এখন সেই পরিবেশ নেই। এ অবস্থায় রাজনীতি হতে সম্পূর্ণ অবসরই আমার কাছে অধিক কাম্য। ক্ষমতার রাজনীতিতে অসুস্থ প্রতিযোগিতা এতটাই প্রকট, যা আমার মানসিকতার সঙ্গে আর কোনোভাবেই মেলানো সম্ভব নয়’।

তিনি আরও বলেন, ‘আদর্শ আর সাহস রাজনীতির মূল বিষয়। এই নিয়েই সফলতা। কৌশল হয়তো সাময়িক সফলতা দিলেও সবশেষে দুনিয়া ও আখিরাতে ব্যর্থতা আসবেই। সফলতা আসলে থেমে যাওয়া উচিত। যেটুকু সম্মান পেয়েছি এটা নিয়ে বেঁচে থাকতে চাই। রাজনৈতিক জীবনে যারা আমার শুভাকাঙ্ক্ষী ছিলেন তাদের শ্রদ্ধা জানাই। কৃষক, শ্রমিক ও মেহনতি মানুষ যারা আমাকে সবচেয়ে বেশি ভালো বেসেছেন, যারা সব বিপদে আমার সঙ্গে ছিলেন, তাদের এই ঋণ শোধ হওয়ার নয়’।

বদলগাছী উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও আধাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন চৌধূরী বলেন, মোস্তফা অলি আহমেদ রুমি চৌধূরী বিগত কমিটিতে সহ-সভাপতি ছিলেন। বর্তমানে যে আহ্বায়ক কমিটি গঠন হয়েছে, সেখানে তার নাম নেই। তবে তিনি রাজনীতি যে ছেড়ে দিয়েছেন বা দিতে চাইছেন মনে হয় না তার সঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পৃক্ততা আছে।

বদলগাছী উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাদী চৌধূরী বলেন, শুনেছি তিনি আর রাজনীতি করতে চান না। তার এক ছেলে সেনাবাহিনীতে চাকরি করেন। রাজনীতি না করার এটাও একটা কারণ হতে পারে।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও নওগাঁ জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন বলেন, তিনি যখন জাতীয় পার্টি করতেন তখন সক্রিয় ছিলেন। হঠাৎ করেই পরবর্তীতে তিনি বিএনপিতে যোগ দেন। গণতান্ত্রিক দেশের নাগরিক হিসেবে তিনি এটা করতেই পারেন। সংকটময় সময়ে তিনি নিজেকে রাজনীতি থেকে বাইরে রাখার লক্ষ্যে অব্যাহতি চেয়েছেন। তবে তিনি বিএনপিতে মনঃক্ষুণ্ণ। এ কারণেই তিনি এটা করে থাকতে পারেন।

জানা গেছে, দলের জন্মলগ্ন থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত জাতীয় পার্টিতে ছিলেন মোস্তফা অলি আহমেদ রুমি চৌধূরী। বিএনপিতে যোগদানের আগে উপজেলা জাপার সভাপতি ছিলেন। পরে ২০০২ সালে উপজেলা বিএনপিতে যোগ দেন। ১৯৯৭ সালে বদলগাছী সদর ইউপি চেয়ারম্যান এবং ২০১৪ সালে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

কিন্তু বর্তমানে বিএনপির নাজুক অবস্থাসহ অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে তিনি রাজনীতি থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিচ্ছেন এমন ধারণা সচেতনদের।