পুত্রবধূকে ‘নতুন স্বামী জোগাড়’ করতে বললেন সাবেক এমপি হিরু (অডিও)

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে বরগুনা-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম সারওয়ার হিরু একটি মা’মলা দায়ের করে নিজের ছেলে গোলাম মোর্শেদ রানাকে জেলে পাঠিয়েছেন। রানার স্ত্রী বেবীকেও জেলে পাঠানোর হু’মকি দিয়েছেন তিনি। সবকিছু বেশি না বুঝে পুত্রবধূকে ‘নতুন স্বামী জোগাড়’ করতেও বললেন সাবেক এমপি।

পুত্রবধূ বেবী তার শ্বশুর হিরুর মোবাইলে ফোন করলে তিনি তাকে যে হু’মকি দিয়েছেন সেটির অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

ওই অডিওতে শোনা গেছে, বেবী তার শ্বশুর হিরুকে তাদের বাড়িতে আসতে বললে তিনি উ’ত্তেজিত হয়ে বা’জে ভাষায় ব’কাঝকা শুরু করেন। বেবীকে বাবার বাড়ি ময়মনসিংহে ফিরে যেতে বলে অ’শ্লীল মন্তব্যও করেন। এ সময় ছেলের সঙ্গে জেলে চালান করে দেওয়ারও হু’মকি দেন হিরু। বেশি না বুঝে পুত্রবধূকে নতুন স্বামী জোগাড় করতেও বলেন সাবেক এমপি।

ভাইরাল ওই অডিও শুনে স্থানীয় লোকজনের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। তাদের দাবি মি’থ্যা মা’মলায় ছেলেকে জেলে পাঠিয়ে এখন পুত্রবধূকে তিনি হু’মকি দিচ্ছেন।

এ বিষয়ে বিআরডিবি পাথরঘাটার সাবেক চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন বাবুল জানান, ‘সমাজের প্রথম শ্রেণির ব্যক্তি ও সাবেক সাংসদ হিসেবে ছেলে ও পুত্রবধূর সঙ্গে এমন আচরণ কাম্য নয়। হিরু একজন সামাজিক লোক হয়ে অসামাজিক আচরণ করে সমাজে নোং’রামি করছেন।’

সাধারণ মানুষকে গা’লিগালাজ করার অ’ভিযোগ হিরুর বি’রুদ্ধে এর আগেও রয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে গোলাম সারওয়ার হিরু বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘অডিও কল রেকর্ডটি আমার না। আমি তাকে কখনো দেখিওনি কখনো কথাও হয়নি। তবে আমার সাথে রানার জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে থানায় মা’মলা রয়েছে।’

পাথরঘাটা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন জানান, হু’মকির বিষয়ে বেবী থানায় এসে মৌখিক অ’ভিযোগ দিলে তাকে লিখিত অ’ভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। লিখিত অ’ভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রানার স্ত্রী বেবী বলেন, ‘আমি শঙ্কার মধ্যে আছি। শ্বশুরের পক্ষ থেকে আমাকে নানাভাবে হু’মকি ধামকি দেওয়া হচ্ছে। পাথরঘাটায় আমার কোনো আত্মীয়-স্বজন নেই। আমার স্বামীকে জেলহাজতে পাঠিয়ে আমাকেও হু’মকি দিচ্ছে।’

উল্লেখ্য, বরগুনা-২ আসনের সাবেক সংসদ গোলাম সারোয়ার হিরুর সঙ্গে পারিবারিক কলহের জের ধরে বুধবার সকালে পাথরঘাটা থানায় মা’মলা দায়ের করায় তারই বড় ছেলে গোলাম মোর্শেদ রানাকে গ্রে’প্তার করে পুলিশ। পরে বুধবার বিকেলে আদালতে সোপর্দ করলে পাথরঘাটার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জামিন নামুঞ্জর করে তাকে জেলহাজতে পাঠান। সূত্র ও অডিও : আমাদের সময়

অডিও