কলকাতায় আপেলের কেজি ৬০, আর পেঁয়াজের দাম

শীতের শুরুতেই বাজারে এমনিতেই সব রকমের শাক-সবজির দাম আকাশ ছুঁয়ে ফে'লেছে। তবে সবজি কিংবা ফলের চেয়েও বেশি কদর করা হচ্ছে এখন পেঁয়াজের। কলকাতায় আপেলের দাম যেখানে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি, সেখানে এক কিলোগ্রাম পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে ৮০ টাকায়!

দুই মাস ধ'রে পেঁয়াজ কিনতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন কলকাতার বাসিন্দারা। পেঁয়াজের ঝাঁঝ এসে লাগছে সংসারে। হোটেল, ফাস্টফুড সেন্টারেও পেঁয়াজ এখন যেন বাড়তি জিনিস। কলকাতার ডেকার্স লেনের একটি ভাতের হোটেলে দুপুরের খাওয়া-দাওয়া করেন সঞ্জীব দাস। টেবিলের বাটিতে লঙ্কা-পেঁয়াজের টুকরা থাকতো আগে। ভাতের স'ঙ্গে ইচ্ছে মতো তুলে নিতো সবাই। গত এক মাস হয়েছে সেই বাটি উধাও। পেঁয়াজ চাইলে হোটেল মালিক বলেন, রান্নায় দিতে পারছি না, আলাদা করে পেঁয়াজ আর দেওয়া যাচ্ছে না।

বিরিয়ানি ভক্ত শান্তনু সেনগুপ্ত ধ'র্মতলার একটি বেসরকারি অফিসে কাজ করেন। সপ্তাহে দু-তিন বার বিরিয়ানি অর্ডার দেন নামকরা রেস্তরাঁয়। সাধারণত বিরিয়ানির প্যাকেটের স'ঙ্গে কাটা পেঁয়াজ, লেবু এবং শশা দেওয়া থাকে আলাদা করে। শান্তনু বলেন, বিরিয়ানির প্যাকেট থেকে পেঁয়াজ উধাও। শুধু শশা আছে।

অন্যান্য নিরামিষ পদ রান্নার ক্ষেত্রেও পেঁয়াজ ব্যবহার করা হচ্ছে না বললেই চলে। আলুর দাম বেড়ে যাচ্ছে। নতুন আলুর দাম কেজি প্রতি ২৬ টাকা হয়ে গেছে। এই সময় আলুর দাম এত হওয়া উচিত নয় বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীদের একাংশ। আলু ১০ থেকে ১২ টাকা, পেঁয়াজও ২০ থেকে ২৫ টাকা হলে মধ্যবিত্তের নাগালেই থাকত। কিন্তু পেঁয়াজের জোগান এবং একাংশের অসাধু ব্যবসায়ীদের জন্য পাইকারি মা'র্কেট থেকে খুচরা মা'র্কেটে আলু-পেঁয়াজের দামের হেরফের হচ্ছে।

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বাজারের দাম নি'য়ন্ত্রণে স্পেশাল টাস্ক ফোর্স এবং এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চকে নজরদারি জো'রদার ক'রতে বলেছেন। এরপর কলকাতাসহ জে'লার গু'রুত্বপূর্ণ পাইকারি এবং খুচরা বাজারে দাম নি'য়ন্ত্রণে মাঠে নেমে পড়েছেন ক'র্মকর্তারা।

নজরদারির ফলে কিছুটা দাম কমেছে। কলকাতায় টাস্ক ফোর্সের অন্যতম সদস্য কমল দে বলেন, বৃষ্টির কারণে শীতকালীন সবজির ফলনে অনেক ক্ষ'তি হয়েছে। সে জন্যই সবজির দাম এতটা চড়া। তবে সপ্তাহখানেকের মধ্যে নতুন সবজি উঠবে। বাজারে জোগানও ভালো থাকবে বলে আশা করছি।